• বুধবার   ২৮ অক্টোবর ২০২০ ||

  • কার্তিক ১৩ ১৪২৭

  • || ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

দৈনিক জামালপুর

দিগপাইত-তারাকান্দি সড়ক উন্নয়নে ৩৭৬ কোটি টাকার প্রকল্প অনুমোদন

দৈনিক জামালপুর

প্রকাশিত: ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০  

জামালপুর জেলার উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের আওতাধীন ৩৭৬ কোটি ৫৬ লাখ টাকার আরও একটি নতুন উন্নয়ন প্রকল্প ২২ সেপ্টেম্বর একনেকের সভায় অনুমোদন দিয়েছেন একনেক সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রকল্পটি হলো ২১ কিলোমিটার দীর্ঘ দিগপাইত-সরিষাবাড়ী-তারাকান্দি সড়ক প্রশস্ত ও মান উন্নয়ন প্রকল্প। সভায় জামালপুরের এই প্রকল্পটিসহ ইলিশ উৎপাদন বাড়ানোসহ এক হাজার ২৬৬ কোটি টাকা ব্যয়ে বাস্তবায়ন করা হবে এমন পাঁচটি প্রকল্প অনুমোদন দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি সাবেক প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম ও সরিষাবাড়ী আসনের এমপি তথ্য প্রতিমন্ত্রী চিকিৎসক মুরাদ হাসানের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় এই প্রকল্পটি আলোর মুখ দেখলো। প্রকল্পটি বাস্তবায়ন এখন সময়ের ব্যাপার মাত্র। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একনেকের সভায় প্রকল্পটির অনুমোদন দেওয়ায় জামালপুরের সাথে সরিষাবাড়ীর তারাকান্দি যমুনা সারকারখানা পর্যন্ত উন্নত সড়ক যোগাযোগ স্থাপনে দীর্ঘ দিনের জনদাবি পূরণ হলো।

দীর্ঘ ২১ কিলোমিটার এই সড়ক উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় সড়কে দুর্ঘটনারোধে অসংখ্য বাঁক কমিয়ে সোজা করা, কোথাও নতুন নির্মাণ, কোথাও পুননির্মাণ এবং বিদ্যমান প্রায় ১১ কিলোমিটার সড়ক প্রশস্তকরণ ও মজবুতিকরণের মাধ্যমে সম্পূর্ণ সড়ক আগের ১৮ ফুট থেকে বাড়িয়ে ৩৪ ফুট প্রশস্ত পাকা সড়ক নির্মাণ করা হবে। এছাড়াও সড়কটির উভয়পাশে ১.৫০ মিটার করে হার্ড শোল্ডার নির্মাণ এবং প্রায় ৯৫ মিটার দৈর্ঘ্যের একটি বড় সেতু এবং বিভিন্ন স্থানে ২১টি কালভার্ট ও ১০টি বাস বে নির্মাণ করা হবে।

জামালপুর সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. মোস্তাফিজুর রহমান জানান, এর আগে এই সড়কে রেলওয়ের দুটি লেভেল ক্রসিং পড়তো এবং সরিষাবাড়ী পৌর শহরের ভেতর দিয়ে বিদ্যমান রাস্তায় ব্যাপক যানজটের কারণে যানবাহন ও পথচারীদের যাতায়াতে খুবই সমস্যা হতো। নতুন এই প্রকল্পে বাউসি লেভেল ক্রসিংয়ের আগেই কোনাবাড়ি থেকে শহরের পূর্ব পাশ দিয়ে সড়কটি ঘুরিয়ে দেওয়া হয়েছে। দিগপাইত-বাউসির কোনাবাড়ি হয়ে বগারপাড় দিয়ে তারাকান্দি যমুনা সারকারখানা পর্যন্ত যাবে সড়কটি। বিভিন্ন স্থানে রাস্তার বাঁক বা মোড়গুলোও সোজা করা হবে। এতে করে যানবাহন ও পথচারী চলাচলে আগের চেয়ে অনেক সময় কমে আসবে।

তিনি আরও জানান, প্রকল্প এলাকার শেষাংশে তারাকান্দিতে অবস্থিত দেশের সর্ববৃহৎ যমুনা সার কারখানা থাকায় অসংখ্য সারবাহী যানবাহন এই সড়ক ব্যবহার করে উত্তরাঞ্চলসহ সারাদেশে দ্রুত সার পরিবহন করতে পারবে। সড়কটি টাঙ্গাইল হয়ে জামালপুর অর্থনৈতিক অঞ্চলে যাতায়াতের অন্যতম এক সহজ মাধ্যম হবে। আলোচ্য প্রকল্পের মাধ্যমে ভুয়াপুর-তারাকান্দি এবং এলেঙ্গা হয়ে সবচেয়ে কম সময়ে জামালপুর ও শেরপুর জেলার সাথে বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চলের যোগাযোগ সম্ভব হবে। প্রকল্পটি অনুমোদন হওয়ায় তিনি একনেক সভাপতি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, সাবেক প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম এমপি ও তথ্য প্রতিমন্ত্রী চিকিৎসক মুরাদ হাসান এমপির প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।

দৈনিক জামালপুর
দৈনিক জামালপুর