• রোববার   ০৫ জুলাই ২০২০ ||

  • আষাঢ় ২০ ১৪২৭

  • || ১৪ জ্বিলকদ ১৪৪১

দৈনিক জামালপুর
৩৬৪

জার্মান অভিধানে পাওয়া গেলা ‘ইনশাআল্লাহ’ লেখা

দৈনিক জামালপুর

প্রকাশিত: ৬ জানুয়ারি ২০২০  

ভবিষ্যতে কোনো কাজ করতে  আমরা মুসলমানরা ‘ইনশাআল্লাহ’ শব্দটি ব্যবহার করে থাকি। এ আরবি শব্দের বাংলা অর্থ দাঁড়ায় ‘যদি আল্লাহ ইচ্ছা করেন’। আর শব্দটি জার্মান অভিধানে সংযুক্ত রয়েছে।

 

১৮৮০ সাল থেকে দেশটির ভাষার অভিধান ডুডেন ওয়েবসাইটে ‘ইনশাআল্লাহ’ শব্দটি প্রকাশিত হয়ে আসছে। এমন খবর জানিয়েছে ইয়েনি শাফাক।

 

ইয়েনি শাফাকের প্রতিবেদনে বলা হয়, ডুডেন ওয়েবসাইটে ‘ইনশাআল্লাহ’ শব্দটি প্রকাশিত হলেও মুদ্রিত সংস্করণে ছাপা নিয়ে কোনো বিবৃতি দেয়নি কর্তৃপক্ষ।

 

কেন মুসলিমরা ইনশাআল্লাহ ব্যবহার করেন?

 

কোরআনের সূরা কাহাফের ২৩ নম্বর আয়াতে রয়েছে ‘তুমি কখনো কোনো বিষয়ে এ কথা বলো না যে, আমি এটি আগামীকাল করব। আবার ২৪ নম্বর আয়াতে বলা হয়েছে ‘ইনশাআল্লাহ’ কথাটি বলতে যদি (কথাটি বলতে) ভুলে যাও, তবে (যখনই তোমার স্মরণে আসবে) তোমার রবকে স্মরণ কর এবং বলো, সম্ভবত আমার রব আমাকে এর (গুহাবাসীর বিবরণ) চেয়ে সত্যের কাছে পথ নির্দেশ করবেন।

 

এ দু’টি আয়াতে রাসূল (সা.) এর প্রতি বিশেষ নির্দেশনা বর্ণিত রয়েছে। আয়াতে ভবিষ্যৎ সম্পর্কিত কোনো কাজে ‘ইনশাআল্লাহ’ না বলে করতে নিষেধ রয়েছে।  প্রাথমিকভাবে মহানবীর (সা.) জন্য এ নির্দেশনা ছিল, পরে সব মুসলমানের জন্য ‘ইনশাআল্লাহ’ বলার নির্দেশনা আসে। 

দৈনিক জামালপুর
দৈনিক জামালপুর
সারাবিশ্ব বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর