• মঙ্গলবার   ০২ জুন ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৯ ১৪২৭

  • || ১০ শাওয়াল ১৪৪১

দৈনিক জামালপুর
১৪

কোভিড-১৯ মোকাবিলায় স্বাস্থ্যখাতকে শক্তিশালী করতে সরকারের পদক্ষেপ

দৈনিক জামালপুর

প্রকাশিত: ২ জুন ২০২০  

কোভিড-১৯ প্রতিরোধে বাংলাদেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা আরও শক্তিশালী করছে বাংলাদেশ সরকার। কোভিড-১৯ এর চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় স্বাস্থখাতকে শক্তিশালী করতে নিরলস কাজ করে যাচ্ছে বাংলাদেশ সরকার। ১০ দিনের মধ্যে ২ হাজার ডাক্তার এবং ৫০৫৪ নার্স নিয়োগসহ সরকার স্বাস্থখাতে আরও ৩ হাজার কর্মী নিয়োগ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এছাড়াও আরও ২ হাজার ডাক্তার নিয়োগ দেয়া হবে। বাংলাদেশ সরকার ইতিমধ্যে ১২ শত মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট নিয়োগের প্রক্রিয়া চুড়ান্ত করেছে। ১৬৫০ মেডিকেল টেকনিশিয়ান এবং ১৫০ কার্ডিওগ্রাফার নিয়োগের প্রক্রিয়া চুড়ান্ত করেছে।

 

জানা যায়,  করোনাভাইরাস সংকট মোকাবিলায় গত ৪ মে দুই হাজার চিকিৎসক এবং ৭ মে পাঁচ হাজার ৫৪ নার্স নিয়োগ দেয় সরকার।

 

এখন তিন হাজার মেডিকেল টেকনোলজিস্ট, টেকনিশিয়ান ও রেডিওগ্রাফার নিয়োগের কাজ শুরু হয়েছে বলে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মিডিয়া সেলের প্রধান অতিরিক্ত সচিব হাবিবুর রহমান খান জানিয়েছেন ।

 

তিনি গণমাধ্যমকে বলেন, তিন হাজার মেডিকেল টেকনোলজিস্ট, টেকনিশিয়ান ও রেডিওগ্রাফার নিয়োগ দেয়ার জন্য আমরা ঈদের মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন পেয়েছি। এখন দ্রুততার ভিত্তিতে তাদের নিয়োগ প্রক্রিয়ার কাজ চলছে।

 

‘সব মিলিয়ে এক মাসের মধ্যেই ডাক্তার, নার্স, টেকনিশিয়ানসহ ১০ হাজারের বেশি স্বাস্থ্যকর্মী নিয়োগের রেকর্ড হবে, যা আগে কখনোই হয়নি।’

 

নতুন নিয়োগ পেতে যাওয়া স্বাস্থ্যকর্মীদের বিষয়ে স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের কর্মকর্তা হাবিবুর রহমান খান বলেন, এদের মধ্যে ১২০০ টেকনোলজিস্ট, ১৬৫০ টেকনিশিয়ান ও ১৫০ জন রেডিওগ্রাফার।

 

যতদিন মহামারি থাকবে ততদিন এরা কোভিড-১৯ রোগীদের চিকিৎসায় নিয়োজিত থাকার পর মহামারি কেটে গেলে বিভিন্ন হাসপাতাল ও ল্যাবে তাদের পদায়ন করা হবে বলে জানান তিনি।

 

কোন প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে নিয়োগ দেয়া হবে জানতে চাইলে এই অতিরিক্ত সচিব বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদনের বিষয়টা এরইমধ্যে আমরা স্বাস্থ্য বিভাগকে জানিয়ে দিয়েছি। এখানে স্বাস্থ্য, জনপ্রশাসন, অর্থসহ বেশ কয়েকটি মন্ত্রণালয় জড়িত। এদের মধ্যে সমন্বয় করে কীভাবে দ্রুত নিয়োগ দেওয়া যায় সেটা নিয়ে আলোচনা চলছে।”

 

আরও দুই হাজার চিকিৎসক নিয়োগের বিষয়ে হাবিবুর রহমান খান বলেন, “আমরা একটা সিগন্যাল পেয়েছি। আমাদের প্রধানমন্ত্রী স্বাস্থ্য খাত নিয়ে অনেক চিন্তা-ভাবনা করেন ও দূরদর্শী সিদ্ধান্ত দেন। তিনি হয়ত দেখছেন যে, স্বাস্থ্য খাতকে আরো গতিশীল করার দরকার আছে। এ কারণে তিনি প্রতিনিয়তই আমাদের নির্দেশনা দিচ্ছেন।

 

‘আরো দুই হাজার ডাক্তার নিয়োগের বিষয়ে আমাদের কাছে নির্দেশ এসেছে। এখন আমাদের কাজ হল এটাকে এগিয়ে নেওয়া। কয়েকটি মন্ত্রণালয়ের মধ্যে সমন্বিতভাবে কাজ করে এটি এগিয়ে নিতে হবে।’

 

৩৯তম (বিশেষ) বিসিএস পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েও যারা নিয়োগ পাননি তাদের মধ্য থেকে দুই হাজার চিকিৎসককে বিসিএস (স্বাস্থ্য) ক্যাডারে সহকারী সার্জন পদে নিয়োগের জন্য গত ৩০ এপ্রিল সুপারিশ করে সরকারি কর্ম কমিশন (পিএসসি)। এছাড়া ৫ হাজার ৫৪ জনকে সিনিয়র স্টাফ নার্স পদে নিয়োগের সুপারিশ করা হয়।

 

এরপর এক সপ্তাহের মাথায় এদের নিয়োগ সম্পন্ন হওয়ার পর কাজে যোগ দিয়েছেন তারা। কোভিড-১৯ চিকিৎসার জন্য তাদের বিভিন্ন হাসপাতালে পদায়ন করা হয়েছে।

 

আরো যে দুই হাজার চিকিৎসক নিয়োগের কাজ এগিয়ে চলছে। তাদেরও ৩৯তম বিসিএস থেকেই নিয়োগ করা হতে পারে বলে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা ইঙ্গিত দিয়েছেন। 

দৈনিক জামালপুর
দৈনিক জামালপুর
জাতীয় বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর