• শনিবার   ২৩ জানুয়ারি ২০২১ ||

  • মাঘ ৯ ১৪২৭

  • || ০৯ জমাদিউস সানি ১৪৪২

দৈনিক জামালপুর
সর্বশেষ:
মানুষের কল্যাণ শেখ হাসিনা সরকারের মূলমন্ত্র: তথ্য প্রতিমন্ত্রী শাহজালাল বিমানবন্দরে ৫ কোটি টাকার সোনার বারসহ যাত্রী আটক ১০ ফেব্রুয়ারির মধ্যে প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোকে তথ্য পাঠানোর নির্দেশ বিশ্ব বাণিজ্যকে সুসংহত করতে হবে, বললেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বৈশ্বিক খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিতে বিনিয়োগ বাড়াতে হবে: কৃষিমন্ত্রী “২০৪১ সালের আগেই বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গড়ে উঠবে” সন্ত্রাস-মাদককে না বলাই সবার জন্য মঙ্গলজনক: পররাষ্ট্রমন্ত্রী দক্ষিণ ও পূর্ব এশিয়ার বিমান পরিবহনের কেন্দ্রবিন্দু হবে শাহজালাল ‘আল্লাহ হামার প্রধানমন্ত্রীর ভালো কইরবে’ সিরিজ জয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলকে অভিনন্দন জানালেন প্রধানমন্ত্রী

মুলায় রয়েছে ক্যান্সার প্রতিরোধক

দৈনিক জামালপুর

প্রকাশিত: ২৩ নভেম্বর ২০২০  

শীতকালীন সবজি’র মধ্যে মুলা অন্যতম। আমাদের অনেকে এর নাম শুনলে বিরক্ত হলেও অনেকেরই পছন্দের তালিকায় আছে এই সবজি। মুলাতে রয়েছে নানান স্বাস্থ্য উপকারিতা। বিভিন্ন শারীরিক সমস্যার সমাধানে এর জুড়ি মেলা ভার। 

 

মুলাতে বিভিন্ন ধরনের মিনারেসল পাওয়া যায়। এতে রয়েছে নানা রোগের দাওয়াই ফাইটোকেমিক্যালস। এছাড়াও ক্যান্সার প্রতিরোধ করতে পারে মুলা। এর আরো অনেক স্বাস্থ্য উপকারিতা রয়েছে। চলুন জেনে নেয়া যাক সেসব- 

 

রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখে 

মুলায় প্রচুর পরিমাণে পটাশিয়াম এবং বিশেষ ধরনের অ্যান্টি-হাইপারটেনসিভ রয়েছে, যা রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখে।  

 

ক্যান্সার নিয়ন্ত্রণ করে

মুলা ক্যান্সারের ঝুঁকি অনেকটাই কমায়। এটি ভিটামিন সি সমৃদ্ধ, যা শক্তিশালী অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট হিসেবে কাজ করে এবং বিভিন্ন ধরনের ক্যান্সার চিকিৎসায় অত্যন্ত কার্যকরী।

 

জন্ডিস রোগীদের জন্য উপকারী 

জন্ডিস রোগীদের জন্য মুলো খুব উপকারী। যাদের জন্ডিস হয়েছে বা যারা ধীরে ধীরে সুস্থ হচ্ছেন,তারা অবশ্যই লবণের সঙ্গে মুলা খান। এতে করে রক্তে বিলিরুবিন নিয়ন্ত্রণ করবে এবং দেহে অক্সিজেনের সরবরাহ বাড়াতে সাহায্য করবে মুলা। এছাড়াও মুলা রক্ত পরিশোধন করে।

 

কিডনি ভালো রাখে

কিডনির জন্য খুবই উপকারী এই সবজি। মুলায় থাকা ভিটামিন এবনহ খনিজ উপাদানগুলো কিডনির যেকোনো সমস্যা রোধ করতে সহায়তা করে। 

 

সাধারণ ফ্লু থেকে রক্ষা করে

শীতকালে সবচেয়ে বেশি যে শারীরিক সমস্যা হয় তা হল - সর্দি, জ্বর। যদি নিয়মিত মুলা খান তবে এইসব সমস্যা কম হবে। এছাড়া মুলা খাওয়ার আরো অনেক সুবিধা রয়েছে। এতে থাকা অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল বৈশিষ্ট্য আমাদের শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে তোলে। 

 

পেটের গ্যাসের সমস্যা দূর করে 

অনেকেই পেটে গ্যাসের সমস্যায় ভোগেন। এক্ষেত্রে মুলা খেতে পারেন। অনেকেই ভাবেন, মুলা খেলে পেটের গ্যাস আরো বাড়ে। এটি পুরোপুরিই ভুল ধারণা। উল্টো মুলা খেলে পেটের গ্যাস কম হয়। এছাড়াও হজম প্রক্রিয়ার জন্যও এটি খুবই ভালো। এতে উচ্চ পরিমাণে ফাইবার রয়েছে, যা কোষ্ঠকাঠিন্য থেকে মুক্তি দেয়।

 

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখে

ডায়াবেটিস রোগীদের জন্যও উপকারী এই মুলা। মুলায় প্রচুর পরিমাণে ফাইবার রয়েছে। এটি রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখতে সহায়তা করে। তাই ডায়াবেটিস রোগীরা এটি নিশ্চিন্তে গ্রহণ করতে পারেন। তবে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। 

দৈনিক জামালপুর
দৈনিক জামালপুর