• বুধবার   ২৫ নভেম্বর ২০২০ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১০ ১৪২৭

  • || ০৯ রবিউস সানি ১৪৪২

দৈনিক জামালপুর

মেলান্দহে ৭ বছর ধরে জাল সনদে চাকরি করছেন দুই শিক্ষক

দৈনিক জামালপুর

প্রকাশিত: ২৮ অক্টোবর ২০২০  

জামালপুরের মেলান্দহ উপজেলার কেজিএস মহর সোবহান মফিজ উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের দু'জন শিক্ষক জাল সনদে চাকরি করছেন সাত বছর ধরে। স্থানীয় শিক্ষা বিভাগ ছাড়াও বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ তদন্তে জাল সনদ প্রমাণিত হওয়ার পরও তারা রয়েছেন বহাল-তবিয়তে। উপজেলার কেজিএস মহর সোবহান মফিজ উদ্দিন উচ্চবিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক রাসেল মিয়া ও শাহ আলম জাল নিবন্ধন সনদে চাকরি নেন ২০১৩ সালে। এ দুই শিক্ষক ২০১৫ সালে এমপিওভুক্ত হন।

 

তারা নিয়মিত বেতন-ভাতাসহ সরকারি সব সুযোগ-সুবিধা ভোগ করছেন। এ ঘটনায় জনৈক কামাল হোসেন শিক্ষা বিভাগ ও দুদক বরাবর অভিযোগ করেন। বিভাগীয় ও বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ তদন্তে গত ২০১৮ সালের প্রথমদিকে ওই দুই শিক্ষকের নিবন্ধন সনদ জাল প্রমাণ হয়। ফলে ভুয়া সনদধারীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে স্কুল কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেয় শিক্ষা বিভাগ ও এনটিআরসিএ। এছাড়া অভিযুক্ত শিক্ষকদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে গত ৪ আগস্ট দুদকের মহাপরিচালক জামালুপরের জেলা প্রশাসককে নির্দেশ দেন। স্কুলের প্রধান শিক্ষক এস এম জুলফিকার আলী লেবু বলেন, নিবন্ধন সনদ জাল ধরা পড়ায় অভিযুক্ত দুই শিক্ষকের বেতন বন্ধ রাখা হয়েছে। স্কুলের গভর্নিংবডির সভাপতি আব্দুল হাকিম আকন্দ বলেন, কমিটির সভা ডেকে জাল সনদধারী দুই শিক্ষককে চূড়ান্ত বরখাস্ত করা হবে।

 

ইউএনও তামিম আল ইয়ামিন ও মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা গোলাম এলাহী আকন্দ বলেন, এ ব্যাপারে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে প্রতিবেদন দেওয়া হয়েছে।

দৈনিক জামালপুর
দৈনিক জামালপুর