• শনিবার   ১০ ডিসেম্বর ২০২২ ||

  • অগ্রাহায়ণ ২৫ ১৪২৯

  • || ১৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

দৈনিক জামালপুর

জয় বাংলা স্লোগানকে জিয়াউর রহমান নিষিদ্ধ ঘোষনা করেছিলেন-মির্জা আজম

দৈনিক জামালপুর

প্রকাশিত: ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২  

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ২৪ বছর ঐ পাকিস্তানিদের বিরুদ্ধে লড়াই সংগ্রাম করে এই বাংলার মানুষের মুক্তির জন্য একটা উন্নত, সমৃদ্ধ, বাংলাদেশ গড়ে তোলার যে স্বপ্ন সেই স্বপ্ন বাস্তবায়ন করার জন্য ২য় বিপ্লবের কর্মসুচী যখন ঘোষনা করেছেন, ঠিক তখনি ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট স্বপরিবারে তাকে তখনি নির্মম ভাবে হত্যা করা হয় বলে সরিষাবাড়ী উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে মন্তব্য করেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম এমপি।

২৫ সেপ্টেম্বর বিকেলে মির্জা আজম তার প্রধান অতিথির বক্তব্যে আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুকে কে হত্যা করেছিল?  
বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছিলো বিএনপি নেতা জিয়াউর রহমান। জিয়াউর রহমান তখন রাজনীতি করতেন না। তিনি সেনা প্রধান ছিলেন। বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের সকল সদস্যকে হত্যা করেছিলেন। তারপর এ বাংলাদেশের রাজনীতিকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে চেয়েছিলেন।  তিনি আরো বলেন, এই বাংলাদেশ,যে বাংলাদেশকে স্বাধীনতা সংগ্রামে ৩০ লক্ষ মানুষ রক্ত দিয়েছে শহীদ হয়েছে। সেই বাংলাদেশে একাত্তরের স্লোগান 'জয় বাংলা' স্লোগানকে জিয়াউর রহমান নিষিদ্ধ ঘোষনা করেছিলেন। গোলাম আজম পাকিস্তানি নাগরিক তাকে বাংলাদেশে আসার অনুমতি দিয়েছিল। তিনি তার বক্তব্যে আরো বলেন,জিয়াউর রহমান যেভাবে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছিলেন অই জিয়াউর রহমানের স্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও তার ছেলে তারেক রহমান বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনাকে শেখ হাসিনাকে হত্যা করার জন্য ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট ঢাকার বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে ১৪টি গ্রেনেড নিক্ষেপ করেছিলেন। আল্লাহ পাক শেখ হাসিনাকে সেদিন রক্ষা করেছিলেন। আজকে শেখ হাসিনার যদি মৃত্যু হতো বঙ্গবন্ধু যে স্বপ্ন দেখেছিলেন,এই বাঙ্গালী জাতির মুক্তি সেই মুক্তি আমাদের কোন দিন আসবে না। সে কারনে আল্লাহ পাক সেদিন ফেরেস্তা পাঠিয়ে শেখ হাসিনাকে রক্ষা করেছিলেন। আল্লাহ পাক সেদিন প্রমাণ করেছেন,আল্লাহ পাক যদি কাউকে রক্ষা করে দুনিয়ার কোন শক্তি নাই যে তাকে হত্যা করতে পারে। মির্জা আজম তার বক্তব্যে সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন মুলক কর্মকাণ্ডের চিত্র তুলে ধরে নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে আরো বলেন,  আগামী সংসদ নির্বাচনে বিএনপি ষড়যন্ত্র করবে তাই সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে সেই ষড়যন্ত্রের মোকাবিলা করে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থীর পক্ষে কাজ করে নৌকার বিজয়ের আহবান জানান তিনি। সরিষাবাড়ী উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ হারুন অর রশিদ এর সঞ্চালনায়
বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক বাবু অসিম কুমার উকিল এমপি, জামালপুর জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বাকী বিল্লাহ,সাধারণ সম্পাদক ফারুক আহমেদ চৌধুরী প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। সরিষাবাড়ী উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ছানোয়ার হোসেন বাদশাহ'র সভাপতিত্বে জামালপুর জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি দিদার পাশা, সহ সভাপতি (সরিষাবাড়ী উপজেলা আওয়ামীলীগের দায়িত্বপ্রাপ্ত) আশরাফ হোসেন তরফদার, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন পাঠান, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক সাবিনা ইয়াসমিন, সদস্য সিআইপি রেজাউল করিম রেজনু,সদস্য বাবু বিজন কুমার চন্দ্র,সদস্য শাহরিয়ার কবীর উজ্জ্বল, জামালপুর পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও মেয়র ছানোয়ার হোসেন সানু,তেজগাঁও থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি অধ্যক্ষ আব্দুর রশিদ,সরিষাবাড়ী উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সহ সভাপতি মাহবুবুর রহমান হেলাল,সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আনিছুর রহমান এলিন, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি কেএম আশরাফুল ইসলাম, জেলা যুবলীগের সভাপতি এরশাদ হোসাইন সোহেল,  জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি খাবিরুল ইসলাম বাবু, সাধারণ সম্পাদক রাফিউল ইসলাম রাব্বি,  পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান মিজান, সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান মিজু সহ জেলা-উপজেলা আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতা কর্মীরা সহ প্রতিটি ইউনিয়নের নির্বাচিত চেয়ারম্যানগণ উপস্থিত ছিলেন। 
দ্বিতীয় অধিবেশনে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বাকী বিল্লাহর  সভাপতিত্ব করেন। ত্রি-বার্ষিকী সম্মেলনের দ্বিতীয় অধিবেশনে ২৫ সেপ্টেম্বর রবিবার সন্ধ্যায় জামালপুর জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বাকী বিল্লাহ সরিষাবাড়ী উপজেলা আওয়ামীলীগের কমিটির সভাপতি ছানোয়ার হোসেন বাদশাহ ও সাধারণ সম্পাদক হারুন অর রশিদ আগামী  ৩ বছরের জন্য কমিটি ঘোষনা করেন।

দৈনিক জামালপুর
দৈনিক জামালপুর