• সোমবার   ৩০ জানুয়ারি ২০২৩ ||

  • মাঘ ১৭ ১৪২৯

  • || ০৭ রজব ১৪৪৪

দৈনিক জামালপুর

৪৩ হাজার কৃষক পেলেন সার-বীজ

দৈনিক জামালপুর

প্রকাশিত: ৮ জানুয়ারি ২০২৩  

দেশের কৃষি উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে কুষ্টিয়ার কৃষকদের প্রণোদনার মাধ্যমে কৃষিকাজে উদ্বুদ্ধ করছে সরকার। প্রণোদনায় কৃষকদের বিনামূল্যে সার ও বীজ দেওয়া হয়েছে। কুষ্টিয়ার ছয়টি উপজেলায় ২০২২-২৩ অর্থবছরে সরকারি এ প্রণোদনার আওতায় ৪৩ হাজার কৃষককের মধ্যে বিভিন্ন ফসলের বীজ ও সার বিনামূল্যে প্রদান করা হয়েছে। এতে ফসলের আবাদ ও উৎপাদন বৃদ্ধি পাবে বলে আশা কৃষক ও কৃষি বিভাগের।
জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালকের কার্যালয় থেকে প্রাপ্ত তথ্য মতে, কুষ্টিয়া জেলার এবার সরকারি প্রণোদনার আওতায় ৪৩ হাজার ১৮৮ জন কৃষকের মধ্যে বিভিন্ন ফসলের বীজ ও সার প্রদান করা হয়েছে। এর মধ্যে খরিপ-২ মৌসুমে মাষকলাই উৎপাদনের জন্য এক হাজার ৬২৮ জন এবং গ্রীষ্মকালীন পেঁয়াজ চাষের জন্য এক হাজার ২০০ কৃষককে বীজ ও সার দেওয়া হয়েছে। রবি মৌসুমে প্রণোদনার মধ্যে রয়েছে- গম বীজ ও সার আট হাজার, সরিষা ২৫ হাজার ৫০০, পেঁয়াজ ৪১০, ভুট্টা চার হাজার ৫০০, সূর্যমুখী এক হাজার ৪০০, চিনা বাদাম ৯০০, মুগ এক হাজার ৫০০ মসুর এক হাজার ৭৫০ এবং খেসারির বীজ ৪০০ জনকে দেওয়া হয়েছে।

কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার কৃষক ইয়ার আলী জানান, উপজেলা কৃষি অফিস থেকে সরিষার বীজ ও সার পেয়েছিলাম। এবার তিন বিঘা জমিতে সরিষার আবাদ করেছি। বেশ ভালো ফলন হয়েছে।

মিরপুর উপজেলার সদরপুর এলাকার কৃষক মাসুম জানান, সরকারি প্রণোদনায় বীজ ও সার পেয়েছি। এ বছর আমি সরিষা চাষ করেছি।

আমলা ইউনিয়নের কৃষক মারজুল হোসেন জানান, এ বছর কৃষি অফিস থেকে বিনামূল্যে সূর্যমুখী ফুলের বীজ ও চাষের জন্য সার পেয়েছি, তা দিয়ে এক বিঘা জমিতে সূর্যমুখীর আবাদ করেছি।

উপজেলার কিপাত আলী, আজিজুর রহমান, সামসুল আলম, মনিরুল ইসলাম, জাহিদুল হক, মহিবুল ইসলামের মতো অনেক কৃষক এ বছর সরকারি প্রণোদনায় প্রাপ্ত বীজ থেকে সরিষার আবাদ করেছেন।

মিরপুর, দৌলতপুর উপজেলার মতো কুষ্টিয়ার ছয়টি উপজেলার প্রায় ৪৩ হাজার কৃষক এবার প্রণোদনায় গম, সরিষা, সূর্যমুখী, ভুট্টা, পেঁয়াজ, মুগ, চিনাবাদাম, মুগ, মসুর, খেসারিসহ বিভিন্ন রবি শস্যের আবাদ করছেন।

কুষ্টিয়া সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সৌতম কুমার শীল জানান, সরকারি প্রণোদায় কৃষকরা বেশ উপকৃত হচ্ছেন। এ বছর সরিষা ও ভুট্টার আবাদ লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে গেছে। এবার সরিষা, ভুট্টাসহ বিভিন্ন রবি শস্যের চাষাবাদ বৃদ্ধি পেয়েছে।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক ড. হায়াত মাহমুদ জানান, জেলা জুড়ে ৪৩ হাজার কৃষক ২০২২-২৩ অর্থবছরে সরকারি প্রণোদনায় আওতায় বিভিন্ন ফসলের বীজ ও সার পেয়েছেন। এরই মধ্যে কৃষকরা এসব বীজ দিয়ে মাঠে চাষাবাদ করছেন। বিনামূল্যে এসব বীজ ও সার পাওয়ায় কৃষকরা বেশ উপকৃত হয়েছেন। আগামীতে এসব ফসলের আবাদ আরো বাড়বে।

দৈনিক জামালপুর
দৈনিক জামালপুর