• বৃহস্পতিবার ৩০ মে ২০২৪ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৬ ১৪৩১

  • || ২১ জ্বিলকদ ১৪৪৫

দৈনিক জামালপুর

রৌমারীতে সীমানা নিয়ে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত-২৫

দৈনিক জামালপুর

প্রকাশিত: ২০ এপ্রিল ২০২৪  

পুলিশের উপস্থিতিতে রাস্তার সীমানাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে উভয় পক্ষে প্রায় ২৫ জন আহত হয়েছে। আহতদের উদ্ধার করে রৌমারী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এনিয়ে থানায় পাল্টাপাল্টি অভিযোগ দায়ের। 

শুক্রবার (১৯এপ্রিল) বিকাল সাড়ে ৫ টার দিকে কুড়িগ্রামের রৌমারী উপজেলার শৌলমারী ইউনিয়নের চরের গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটে।

পুলিশ ও স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, জমির সীমানা নিয়ে নজরুল ইসলাম হোসেন আলীর দ’ুগ্রæপের দ্বন্দ চলছিল। এনিয়ে আদালতে মামলা ও একাধীকবার শালিসি বৈঠকও হয়। এরই মধ্যে যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নতির জন্য এলজিইডি অর্থায়নে ওই রাস্তাটি মেরামতের জন্য বরাদ্দ দেওয়া হয়। রাস্তাটির মেরামতের কাজ শুরু হলে চরের গ্রামের নতুন মসজিদা সংলগ্ন রেকর্ডিয় জমি দিয়ে রাস্তার সীমানা না নিয়ে নজরুল ইসলামের রেকর্ডিয় জমির উপর দিয়ে সমীনা নিধারন করেন হোসেন আলী ও তার সহযোগিরা।  পরে নজরুল ইসলাম রাস্তার সঠিক সীমানা নিধারণ করতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর একটি ণিখিত আবেদন দিলে তিনি উপজেলা সার্ভেয়ার আব্দুল আওয়ালকে সীমান নিধারণের জন্য দায়িত্ব দেন। গত সপ্তাহে চরের গ্রামে গিয়ে ওই রাস্তাটির সীমানা নির্ধ্রাণ করেন এবং খুটি পুতেন। দুইদিন পর হোসেন আলী ও তার গ্রæপের লোকজন সার্ভেয়ারের মাপ না মেনে সীমানার খুটি তোলে ফেলেন এবং তারাই গত ১৮ এপ্রিল রৌমারী থানায় একটি অভিযোগ দেন। অভিযোগের প্রেক্ষিতে গতকাল শুক্রবার বিকালের দিকে ঘটনাস্থলে তদন্তে যান এসআই মামুন। এসময় পুলিশের উপস্থিতিতে নজরুল ও হোসেন আলী দু’গ্রæপের মধ্যে বাকবিতন্ডতার একপর্যায়ে সংঘর্ষের সৃষ্টি হলেও মুহুর্তে পুলিশ ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন। এতে উভয় পক্ষে কাদের (৬০), আবুল হোসেন (৭০), শাহিদা (৫২), রাশেদ (২৫) সোহেল রানা (২৪), হাফিজ (৩৫), নজরুল (৫০), রাশেদা (৩৫), নাজিত আকতার (৩২), আব্দুল জলিল (৩০), শিরিনা (২০), মোকছেনা (৩৫), নজরুল (৪০), ময়নাল (৩২), হাসান (৪০) রওশন আরা (৩৫) সহ প্রায় ২৫ জন আহত হয়। আহতদের উদ্ধার করে রৌমারী হসাপাতালে ভতি করা হয়েছে এবং অন্যরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে চলে যান।  
রৌমারী হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক আব্দুর রাজ্জাক জানান আহতদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা গুরতর। 
এসআই মামুন ঘটনা অস্বীকার করে বলেন, আমি থাকাবস্থায় কোন মারামারি হয়নি।তবে আমি চলে আসার পরে তাদের মধ্যে সংঘর্ষের সৃস্টি হয়। 
রৌমারী থানার অফিসার ইনচার্জ মুশাহেদ খান (ভার:) ঘটনার সত্যতার স্বীকার করে বলেন, এঘটনায় পাল্টাপাল্টি অভিযোগ করেছে এবং তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
 

দৈনিক জামালপুর
দৈনিক জামালপুর