• রোববার ১৬ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ২ ১৪৩১

  • || ০৮ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

দৈনিক জামালপুর

বেনজীরের আরও ১১৯ দলিলের সম্পদ জব্দের আদেশ

দৈনিক জামালপুর

প্রকাশিত: ২৭ মে ২০২৪  

পুলিশের সাবেক মহাপরিদর্শক (আইজিপি) বেনজীর আহমেদ ও তাঁর স্ত্রী-সন্তানের নামে থাকা আরও ১১৯টি দলিলের সম্পদ জব্দ (ক্রোক) করার আদেশ দিয়েছেন আদালত। দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে রোববার ঢাকা মহানগর আদালতের সিনিয়র স্পেশাল জজ মোহাম্মদ আসসামছ জগলুল হোসেন এই আদেশ দেন। এর আগে গত ২৩ মে আদালত বেনজীর আহমেদ ও তাঁর পরিবারের ৮৩টি দলিলের সম্পদ জব্দ ও ৩৩টি ব্যাংক হিসাব অবরুদ্ধ (ফ্রিজ) করার আদেশ দেন। এদিকে বিদেশে সাবেক আইজিপি বেনজীরের ও তাঁর পরিবারের সম্পদের তথ্য চেয়ে এরই মধ্যে বাংলাদেশ ব্যাংকের বাংলাদেশ ফাইন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিটে (বিএফআইইউ) চিঠি পাঠিয়েছে দুদক। তাদের বিদেশযাত্রায় নিষেধাজ্ঞা চেয়ে আদালতে আবেদনের প্রস্তুতির কথাও জানিয়েছেন দুদক কর্মকর্তারা। গতকাল আদালত যেসব সম্পদ জব্দের আদেশ দিয়েছেন সেগুলো ঢাকা, সাভার ও মাদারীপুরের বিভিন্ন এলাকায় বেনজীর আহমেদ, তাঁর স্ত্রী ও তিন মেয়ের নামে। এদিন ১১৯টি দলিলের যেসব সম্পদ জব্দের আদেশ দেওয়া হয়, তার মধ্যে রয়েছে ঢাকার গুলশানে ২০৪২ বর্গফুটের দুটি ও ২০৫৩ বর্গফুটের দুটি ফ্ল্যাট এবং সাভারের ৩ কাঠা জমি। এ ছাড়া তাঁর চারটি কোম্পানির হিসাব, চারটি বিও অ্যাকাউন্ট ও ১৫টি আংশিক মালিকানাধীন কোম্পানির শেয়ার ফ্রিজ এবং সোনালী ব্যাংকের সঞ্চয়পত্র জব্দের আদেশ দেন আদালত। মানি লন্ডারিং আইন-২০১২ এর ১৪ ধারা এবং দুদক বিধিমালা-২০০৭ এর বিধি ১৮ অনুযায়ী এই আদেশ দেওয়ার কথা উল্লেখ করেন আদালত। দুদকের উপপরিচালক হাফিজুল ইসলামের করা আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত এ আদেশ দিয়েছেন বলে জানান সংস্থাটির পিপি মাহমুদ হোসেন জাহাঙ্গীর। তিনি বলেন, ‘গত বৃহস্পতিবার বেনজীর আহমেদের ৮৩টি দলিলের সম্পদ ক্রোকের আদেশ দিয়েছেন আদালত। পরে তাঁর আরও সম্পদের খোঁজ পাওয়া যায়। ওই সম্পদ ক্রোকের আদেশ চেয়ে আদালতে আবেদন করা হয়েছিল। শুনানি শেষে আদালত বেনজীর আহমেদ ও তাঁর পরিবারের ১১৯টি দলিলে সম্পদ, বিভিন্ন কোম্পানিতে শেয়ার ও ৩০ লাখ টাকার সঞ্চয়পত্র জব্দের আদেশ দিয়েছেন।’ আদেশের কপি দুদকে পাঠানো হয়েছে বলে জানান তিনি। একটি দৈনিকে সাবেক আইজিপি বেনজীরের সম্পদ নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশিত হওয়ার পর গত ২২ এপ্রিল এ বিষয়ে অনুসন্ধান শুরু করে দুদক। প্রধান কার্যালয়ের উপপরিচালক হাফিজুল ইসলামের নেতৃত্বে তিন সদস্যের একটি অনুসন্ধান টিম গঠন করা হয়। টিমের অন্য দুই সদস্য হলেন সহকারী পরিচালক নিয়ামুল আহসান গাজী ও জয়নাল আবেদীন। বিএফআইইউতে দুদকের চিঠি বেনজীর আহমেদ ও তাঁর পরিবারের বিদেশে থাকা সম্পদের তথ্য চেয়ে বিএফআইইউতে চিঠি পাঠিয়েছে দুদক। চিঠিতে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, কানাডা, অস্ট্রেলিয়াসহ কোনো দেশে বেনজীর ও তাঁর পরিবারের সম্পদ রয়েছে কিনা, তা খুঁজে বের করে কমিশনকে জানাতে বলা হয়েছে। বিএফআইইউ পরিচালক বরাবর চিঠিটি পাঠান দুদক পরিচালক (মানি লন্ডারিং) গোলাম শাহরিয়ার চৌধুরী। দুদকের একটি সূত্র জানায়, বিদেশে বেনজীর ও তাঁর পরিবারের সম্পদের তথ্য পাওয়া গেলে সে বিষয়ে আদালতকে অবহিত করা হবে। তাদের বিদেশযাত্রায় নিষেধাজ্ঞা চেয়ে শিগগির আদালতে আবেদন করার প্রস্তুতির কথাও জানিয়েছেন দুদকের এক কর্মকর্তা। রিসিভার নিয়োগ হয়নি বেনজীর আহমেদের সম্পদ ক্রোক ও ব্যাংক হিসাব অবরুদ্ধ করার বিষয়ে আদালতের আদেশ বাস্তবায়নে রিসিভার নিয়োগ সিদ্ধান্ত এখনও চূড়ান্ত হয়নি। দুদকের এক কর্মকর্তা জানান, শিগগির রিসিভার নিয়োগের ব্যাপারে আদালতে আবেদন করা হবে। এর আগে গত ২৩ মে বেনজীর আহমেদ ও তাঁর পরিবারের ৮৩টি দলিলের সম্পদ ক্রোক ও ৩৩টি ব্যাংক হিসাব অবরুদ্ধের আদেশ দেন আদালত। দুদকের আইনজীবী খুরশীদ আলম খান রোববার সমকালকে বলেন, ‘বেনজীর আহমেদের সম্পদ জব্দ ও ব্যাংক হিসাব ফ্রিজের আদেশের অনুলিপি দুদকে পৌঁছেছে। পর্যায়ক্রমে সংশ্লিষ্ট সংস্থার কার্যালয় ও ব্যাংকে তা পাঠানো হবে।’

দৈনিক জামালপুর
দৈনিক জামালপুর