• রোববার ১৬ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ২ ১৪৩১

  • || ০৮ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

দৈনিক জামালপুর

পহেলা জানুয়ারি নববর্ষের দিন হিসেবে নির্দিষ্ট হলো যেভাবে

দৈনিক জামালপুর

প্রকাশিত: ১ জানুয়ারি ২০২৪  

নববর্ষ বা নতুন বছর মানে গত এক বছরের হিসাব-নিকাশ কষা। মন্দ কাজ ও অভ্যাসকে পেছনে ফেলে নতুন নতুন ভালো কাজ ও সুন্দর পরিকল্পনার মাধ্যমে জীবনকে সাজিয়ে নেওয়া। আর এই নববর্ষ বা নতুন বছরের প্রথম দিনকে গিরে বিশ্বজুড়ে উদযাপর করা হয় বিভিন্ন উৎসব। পৃথিবীতে সর্বপ্রথম জুলিয়াস সিজার ইংরেজি নববর্ষ উৎসবের প্রচলন করেন খ্রিস্টপূর্ব ৪৬ অব্দে। প্রাচীনকালে নববর্ষের প্রথম দিন মন্দ অভ্যাস পতিত্যাগ ও ভালো ও সুন্দর অভ্যাস অর্জনের প্রতিজ্ঞা করা হতো। বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন তারিখে নববর্ষ পালন করা হতো। ইরানে নববর্ষ শুরু হয় পুরনো বছরের শেষ বুধবার এবং উৎসব চলতে থাকে নতুন বছরের ১৩ তারিখ পর্যন্ত। প্রাচীন পারস্যের সম্রাট জমশিদ খ্রিস্টপূর্ব ৮০০ সালে এই নববর্ষের প্রবর্তন করেছিলেন। মেসোপটেমিয়ায় নববর্ষ শুরু হতো নতুন চাঁদের সঙ্গে। ব্যাবিলনিয়ায় নববর্ষ শুরু হতো মহাবিষুবের দিনে ২০ মার্চ। অ্যাসিরিয়ায় শুরু হতো জলবিষুবের দিনে ২১ সেপ্টেম্বর। মিসর, ফিনিসিয়া ও পারসিকদের নতুন বছর শুরু হতো ২১ সেপ্টেম্বর। গ্রিকদের নববর্ষ শুরু হতো খ্রিস্টপূর্ব পঞ্চম শতাব্দী পর্যন্ত ২১ ডিসেম্বর। রোমান প্রজাতন্ত্রের পঞ্জিকা অনুযায়ী নববর্ষ শুরু হতো ১ মার্চ এবং খ্রিস্টপূর্ব ১৫৩ সালের পর ১ জানুয়ারি। মধ্যযুগে ইউরোপের বেশির ভাগ দেশে নববর্ষ শুরু হতো ২৫ মার্চ। এভাবেই চলতে থাকে নববর্ষের উৎসব। সর্বশেষ খ্রিস্টানদের ধর্মযাজক পোপ গ্রেগরির নামানুসারে যে ক্যালেন্ডার প্রবর্তন করা হয় ওই ক্যালেন্ডার অনুযায়ী পহেলা জানুয়ারিকে পাকাপোক্তভাবে নববর্ষের দিন হিসেবে নির্দিষ্ট হয় ১৫৮২ সালে। ধীরে ধীরে ইউরোপসহ বিভিন্ন দেশে এই ক্যালেন্ডার অনুযায়ী নববর্ষ পালন করা হচ্ছে।

দৈনিক জামালপুর
দৈনিক জামালপুর