• শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ||

  • ফাল্গুন ৯ ১৪৩০

  • || ১১ শা'বান ১৪৪৫

দৈনিক জামালপুর
সর্বশেষ:
‘স্মার্ট বাংলাদেশ’ বাস্তবায়নে জাপানের সহযোগিতা চাইলেন পলক বেসরকারি মেডিকেল, ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক চালাতে শর্ত ফেনীতে অমর একুশে বইমেলা শুরু বিএনপি রোজা-রমজান-ঈদ কোনোটাই মানে না : পররাষ্ট্রমন্ত্রী রমজানে দ্রব্যমূল্য সহনীয় পর্যায়ে রাখতে সরকার সব ধরনের পদক্ষেপ দেশের প্রতিটি পরিবারকে স্বনির্ভর হতে সহায়তা করছে সরকার বিদ্যমান বাড়ি ভাড়া আইনের বিধানসমূহ পর্যালোচনা করা হবে: আইনমন্ত্রী আমমোক্তারনামার অপব্যবহার প্রতিরোধে ব্যবস্থার নেয়ার নির্দেশ গুলশান সোসাইটির নবনির্বচিত কার্যকরী কমিটির শপথ গ্রহণ বাসস’র নাম ভাঙ্গিয়ে প্রতারণার অভিযোগে রাসেল খানের বিরুদ্ধে জিডি

ঢাকাকে হারিয়ে সিলেটের দ্বিতীয় জয়

দৈনিক জামালপুর

প্রকাশিত: ৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪  

চলমান বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) আজকের আগে সাত ম্যাচে শুধু একটিতে জিতেছিল সিলেট স্ট্রাইকার্স। যা এসেছিল দুর্দান্ত ঢাকার বিপক্ষে। ফিরতি দেখাতেও একই দলের বিপক্ষে জয় তুলে নিয়েছে সিলেট। যা আসরে দলটির দ্বিতীয় জয়। মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে নির্ধারিত ২০ ওভারে আট উইকেটে ১২৪ রান করে দুর্দান্ত ঢাকা। জবাবে ছয় বল হাতে রেখে পাঁচ উইকেট হারিয়ে লক্ষ্য পৌঁছায় সিলেট স্ট্রাইকার্স। রান তাড়ায় শুরুতেই সবাইকে চমকে দেয় সিলেট। যেখানে দলটির হয়ে ইনিংস উদ্বোধনে নামেন সামিত প্যাটেল ও হ্যারি টেক্টর। তবে দলটির এ ট্যাক্টিকস কাজে লাগেনি। টেক্টর ৮ রান করলেও খাতাই খুলতে পারেননি সামিত। ফর্মে থাকা জাকির ৮ ও মোহাম্মদ মিঠুন ১৭ রানে বিদায় নেন। ব্যক্তিগত ৩৩ রানে নাজমুল হোসেন শান্ত ফিরলে চাপে পড়ে সিলেট। তখন দলীয় সংগ্রহ ছিল পাঁচ উইকেটে ৭৪! কঠিন পরিস্থিতিতে দলের হাল ধরেন রায়ান বার্ল ও বেনি হাওয়েল। শেষ পর্যন্ত ৫৫ রানের অবিচ্ছেদ্য ও মহাগুরুত্বপূর্ণ জুটিতে দলকে জিতিয়েই মাঠ ছাড়েন বার্ল ও হাওয়েল। এ সময় তারা যথাক্রমে ২৯ ও ৩০ রানে অপরাজিত ছিলেন। ঢাকার হয়ে শরিফুল তিনটি ও উসমান দুটি উইকেট নেন। এর আগে টস জিতে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেন সিলেট স্ট্রাইকার্স অধিনায়ক মোহাম্মদ মিঠুন। বল হাতে প্রথম ওভারেই সাফল্যের দেখা পান নাঈম হাসান। তার বলে মাত্র ৪ রানে আউট হন সাব্বির হোসেন। শুরুর ধাক্কা সামলে নাঈম শেখ ও সাইফ হাসানের ব্যাটে ঘুরে দাঁড়ায় ঢাকা। দুজনে মিলে গড়েন ৭৮ রানের জুটি। ক্রমেই ভয়ংকর হয়ে ওঠা এই জুটিকে ভাঙেন বেনি হাওয়েল। তার বলে বোল্ড হওয়ার আগে ৪১ রান করেন সাইফ। সাইফ আউট হওয়ার পর আর কেউই বেশিক্ষণ ক্রিজে টিকতে পারেননি। নাঈম করেন দলের পক্ষে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৩৬ রান। এছাড়া সাইম আইয়ুব করেন ১০ রান। সিলেটের হয়ে রাজা তিনটি, সামিত দুটি এবং বেনি ও নাঈম একটি করে উইকেট নেন।

দৈনিক জামালপুর
দৈনিক জামালপুর