• শুক্রবার ১৪ জুন ২০২৪ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ৩০ ১৪৩১

  • || ০৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

দৈনিক জামালপুর

ভাত রান্নার আগে জেনে নিন সঠিক রেসিপি

দৈনিক জামালপুর

প্রকাশিত: ১১ জুন ২০২৪  

ভাত বা অন্ন, চালকে পানিতে সেদ্ধ করে তৈরি খাবার। ভাত বাংলাদেশের ও ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মানুষের প্রধান খাদ্য। এছাড়াও ভারতীয় উপমহাদেশে ভাত খাওয়ার চল রয়েছে।
ভারতীয় উপমহাদেশ ছাড়াও চীন জাপান ও কোরিয়ায় ভাত খাওয়ার প্রচলন রয়েছে। তবে স্থান ভেদে বিভিন্ন ভাবে বিভিন্ন রকম ভাত খাওয়া হয়। পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশে ঝরঝরে ভাত খাওয়া হয়। কিন্তু চীন জাপান ও কোরিয়ায় আঠালো ভাব খাওয়ার প্রচলন রয়েছে।

যা-ই হোক। তবে প্রতিদিন ভাত খাওয়ার অভ্যাস থাকলেও সঠিক নিয়মে ভাত রান্নার পদ্ধতি কিন্তু অনেকেই জানেন না। কি জেনে অবাক লাগছে। হ্যাঁ, এটাই সত্যি।

এদিকে খাবারের গুণাগুণ ঠিক রেখে ভাত রান্নার নিয়ম অনেকেই জানেন না বলে মনে করেন যুক্তরাজ্যের বিখ্যাত শেফ পিটার সিডওয়েল।

পিটার সিডওয়েলের খ্যাতি শুধু যুক্তরাজ্যেই নয়, পরিচিতি রয়েছে বিশ্বের বিভিন্ন দেশেও। খাবারের গুণাগুণ ঠিক রেখে সুস্বাদু খাবার তৈরির দক্ষতা থাকায় বিশ্বে তার জনপ্রিয়তা অনেক।

পিটার তার অফিশিয়াল ইউটিউব চ্যানেলে মূলত বিদেশি নানা ধরনের খাবার রান্না করে দেখান। ব্রিটিশ চ্যানেল ৪ এ প্রায়ই তাকে রান্নার অনুষ্ঠানে দেখা যায়।

নানা ধরনের খাবারের মধ্যে পিটার ভাতও রান্না করার সঠিক নিয়ম শিখিয়েছেন। ভাত রান্নার সময় পিটার অবশ্য এ খাবারকে পরিচয় করে দিয়েছেন ভারত ও বাংলাদেশের প্রধান খাবার হিসেবে।

পিটারের ভাত রান্নার কৌশল দেখে অনেকটাই হতাশ হবেন আপনি। কারণ আপনার তখন মনে হবে, এতোদিন আপনি ভুল কৌশলে ভাত রান্না করে এসেছেন। তাই দেরি না করে আসুন জেনে নিই বিশ্বখ্যাত শেফের ভাত রান্নার ম্যাজিক্যাল পদ্ধতিটি।

পিটার তার রান্নায় অবশ্য বাসমতি চাল ব্যবহার করেন। তবে তিনি এও জানান সব চাল এই একই উপায়ে রান্না করা যায়। চাল রান্না করার আগে তা অবশ্যই ভালো করে ধুয়ে নেয়ার পরামর্শ দেন তিনি।

কারণ চাল ভালো করে না ধোয়া হলে একদিকে এটি যেমন পেটের অসুখের কারণ হতে পারে। তেমনি চালে রাসায়নিক পদার্থ থাকলে তা বেশি বার ধোয়ার ফলে পানির সঙ্গে বেরিয়েও যেতে পারবে।

আমরা অনেকেই চাল রান্না করার সময় হাঁড়িতে ঢাকনা দেই না। আবার চাল সিদ্ধ করার জন্য পানির পরিমাণও দেই বেশি। এমনটা কোনোভাবেই করা যাবে না বলে মনে করেন পিটার।

তিনি চাল রান্নার সঠিক পানির পরিমাণ হিসেবে জানান, এক কাপ (২০০ গ্রাম) চালের জন্য দেড় কাপ (৩৬০ মিলি) পানি ব্যবহার করা উচিত।

তার মতে, ভাত কখনই উচ্চতাপে রান্না উচিত নয়। কারণ উচ্চ তাপে রান্না করার সময় ভাত নিচে পোড়া লেগে যায় সেই সঙ্গে ভাতের পুষ্টিগুণও নষ্ট হয়।

ভাত রান্নার সময় অবশ্যই চুলার আঁচ থাকবে মৃদু। এসময় কোনো অবস্থাতেই পাত্রের ঢাকনা খোলা যাবে না। এতে করে ভাতের পুষ্টিগুণ শতভাগ বজায় থাকবে। সেই সঙ্গে ভাত হবে অনেক বেশি ঝরঝরে।

ভাত রান্নার পর আমরা সবাই ভাতের মাড় ফেলে দিই। এমনটাও করা যাবে না বলে মনে করেন পিটার। এ প্রসঙ্গে পিটার মনে করে, এতে করে ভাতের আসল পুষ্টি থেকেই আমরা বঞ্চিত হই। তাই ভাত রান্না করতে হবে মাড় না ফেলে।

দৈনিক জামালপুর
দৈনিক জামালপুর