মঙ্গলবার   ১০ ডিসেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ২৬ ১৪২৬   ১২ রবিউস সানি ১৪৪১

দৈনিক জামালপুর
৩২৩

সিক্রেট এ্যাম্পায়ার

প্রকাশিত: ২৫ নভেম্বর ২০১৯  

আমাদের বীর হওয়ার কথা ছিল।

 

আমাদের কোন কিছুর জন্য দাঁড়ানোর কথা ছিল।

 

বলা কঠিন কখন সবকিছু ভুল পথে চলা শুরু করেছিল।

 

কিন্তু কোন এক ফাঁকে আমরা যুদ্ধটা নিজেদের ব্যক্তিগত করে নিয়েছিলাম-- যে বিশ্বকে রক্ষা করার শপথ নিয়েছিলাম সেটার জন্য নয়।

 

আমরা নিজেদের দ্বিধাবিভক্ত পেয়েছিলাম--

- - হয়েছিলাম অধীনস্থ।

 

অনেক হুমকি, অনেক বিপদ--

কিন্তু যে ব্যক্তি আমাদের শেষ করে দিবে--

- - ছিলেন একজন যার উপর আমরা সবচেয়ে বেশি আস্থা স্থাপন করেছিলাম।

 

মজার ব্যাপার হলো পৃথিবী কিভাবে একদিনে পরিবর্তিত হয়ে যায়। কিভাবে কোনোকিছু এত ভয়াবহ এত তাড়াতাড়ি চুপিসারে আপনাকে কাবু করে ফেলে।

 

ওয়াশিংটন ডিসি

হাইড্রা আক্রমণ

০৪০০

 

আচমকা একটা ভ্যান একটা হাইড্রা এজেন্ট ভর্তি কার কে সজোরে ধাক্কা দেয়। ভ্যানের চালক বের হয়ে বলেন, "যত্ত সব পর্যটক।" একজন হাইড্রা এজেন্ট চিৎকার করে ওঠে, "ফ্রীইইইইজ! একদম নড়বে না" ক্লিন্ট বেশ হাস্যরসের ভংগীতে দু'হাত উপরে তুলতে তুলতে বলেন, "আচ্ছা ঠিক আছে, কিন্তু তোমাদের হাইড্রা ভাইদের সঠিক সংখ্যা আমার জানা দরকার, মানে, বুমেরাং তীরের জন্য।"

 

সাথে সাথে তিনজন এজেন্টই প্রচন্ড বৈদ্যুতিক শকের সাথে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে।

 

"বুমেরাং তীর?" প্রশ্ন করে ব্ল্যাক উইডো। "সেটা তো সারাজীবন সময় লাগাবে হক আই।" "আর তুমি ইতিমধ্যেই দেরী করে ফেলেছি" হক আই উত্তরে বলে, "স্টার্টার কাজ দিবে না, ন্যাট।"

নাতাশা, "তুমি যখন বড়লোক ছিলে, তখন তোমাকে বেশি পছন্দ করতাম। তাড়াতাড়ি আসো, তুমি যুদ্ধটা মিস করবে।"

 

এদিকে অ্যাভেন্জার্স বনাম হাইড্রা রণক্ষেত্রে, "আকাশপথের যোদ্ধা দের আক্রমণ করো। নিজেদের মাটি ছেড়ো না" চিৎকার করে বলে থর।

 

ব্ল্যাক প্যান্থার: "হাইড্রা জানতো আমরা আসছি।"

ওয়ান্ডা: "অদ্ভুত, এরকম এ্যাপয়েন্টমেন্ট আমি করি নি।"

 

এন্ট ম্যান: "আরে ভাই, আমার প্রতিষ্ঠিত শত্রু দরকার, কিন্তু ইয়েলো জ্যাকেট এখন হাইড্রায়?"

স্পাইডার-ম্যান: "আমার মনে হয় সবাই আছে। শত্রুর শত্রু বন্ধু বলে কথা।"

এন্ট ম্যান: "এভাবে আমি ফ্রি নেটফ্লীক্স পেয়েছি।"

 

আইরন-ম্যান: "এটা একটা ভালো প্ল্যান, রিরি। এই প্ল্যান আমাদের প্রায় হারিয়ে দিতে পারে।" রিপাল্সার বীম ছুড়তে ছুড়তে বলে স্টার্ক।

রিরি: প্রায়? এরচেয়ে কি খারাপ হতে পারে তা-ই কল্পন করতে পারছি না।"

 

আইরন-ম্যান: "এর চেয়ে আরো খারাপ হতে চলেছে।"

 

এবং স্টার্ক ঠিক বলেছিল।

 

আমরা এতবার অসম্ভব পরিস্থিতিতে জয় লাভ করেছি যে, আমরা জয়কে নিজেদের মনে করেছি।

 

আমরা বিশ্বাস করতে শুরু করেছিলাম যে, বিজয় আমাদের নিয়তি।

 

কিন্তু এবার কিছু একটা অন্যরকম মনে হচ্ছিল।

 

আমরা আমাদের শেষ বিন্দু পর্যন্ত ধীরে ধীরে, ধারাক্রমে চলে এসেছিলাম। আমরা যখন ভেবেছিলাম যে, আমরা প্রায় টিকে গেছি- - তারা আসল আঘাত করে বসে।

 

একটি কুইন জ্যাট হাইড্রা চিহ্ন সম্বলিত, অ্যাভেঞ্জার্স দের উপর দিয়ে উড়ে আসে।

 

স্পাইডার-ম্যান: "এটা ভালো ঠেকছে না।"

হারকিউলিস: "আমি দ্বিমত পোষণ করছি। এটা বোঝায় ওদের সেনাপতি এসেছে এবং আমরা তাদেরকে ওর সাথে- -

 

জ্যাট থেকে সজোরে বোমা হামলা হয়। অ্যাভেন্জার্সরা ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে।

 

যুদ্ধ যখন শুরু হয়ে পড়ে, তাঁরা ইতিমধ্যেই সন্দেহ প্রবণ হয়ে পড়ে। মৃদু গুঞ্জন, কেউ কেউ জানতো ইনি কে, হাইড্রার নতুন গোপন নেতা।

 

একমাত্র তিনিই এরকম দুরভিসন্ধী করতে পারেন। তারপরও তাঁরা বিশ্বাস করতে চান না।

 

যতক্ষণ না তারা তা নিজ চোখে দেখছে।

 

হাইড্রার কুইন জ্যাট থেকে বেরিয়ে আসলেন ক্যাপ্টেন স্টীভ রজার্স। নির্লিপ্ত, ঠান্ডা, আত্মবিশ্বাসী ক্যাপ, রেড স্কালের সঙ্গী সাথীদের নিয়ে পরিবেষ্টিত।

 

স্পাইডার-ম্যান: "আচ্ছা, আমি যখন বলেছিলাম সবাই এখন হাইড্রা, আমি এটা বোঝাতে চাই নি।"

হারকিউলিস: "এটা হতে পারে না।"

 

মিস মার্ভেল: স্ক্রাল?

হাল্ক: এলএমডি?

স্পাইডার-ম্যান: আমি জানি না, কিন্তু আমার মাথার ভিতর এটা অনেক কিছু ব্যাখ্যা করে।

 

ক্যাপ্টেন স্টীভ রজার্স: "আমার কথা শোন সবাই। এটাই সত্যি। যত তাড়াতাড়ি এটা তোমরা মেনে নিবে, ততই ভালো হবে। আমি বুজতে পারছি এটা একটা বড় ধরনের ধাক্কা, কিন্তু এটা এত জটিল করার দরকার নেই।

 

হক আই: "ও আচ্ছা, শুনো- - বেশিরভাগ মানুষ যখন জানতে পারবে যে, ক্যাপ্টেন আমেরিকা, এই গ্রহের সবচেয়ে বিশ্বস্ত বীর, একজন হাইড্রা? বিশ্বাস করো এটা তাদের জন্য কঠিনই হবে।"

 

ব্ল্যাক উইডো: "দেখ, একারনেই আমি সবসময় বলি, তুমি কখনো জোর দিয়ে কিছু বলতে পারো না।"

 

ক্যাপ্টেন স্টীভ রজার্স: "আমি আর রক্তপাত চাই না। আমরা এখানে কাউকে আঘাত করতে আসিনি। আমরা এই বিশ্বকে আরো ভালো, আরো শক্তিশালী যেরকম আগে কখনো ছিল না, বানাতে চাই। যেখানে তোমরা ব্যর্থ হয়েছ, হাইড্রা সফল হবে। কিন্তু তোমরা সেটা আমাদের সাথে শত্রু হিসেবে অথবা মিত্র হিসেবে বেছে নিতে পারো। আমি সেটা তোমাদের জন্য ঠিক করে দিতে পারি না। তাই আমার মনে হয় তোমাদের একটা সিদ্ধান্তে উপনীত হতে হবে।"

 

কিছু মুহূর্ত স্তব্ধতার। "না, আমি মনে করি না যে আমাদের তা করতে হবে।" আইরন-ম্যান উত্তর দিল।

 

এবং তাই আমরা লড়াই করলাম। আমরা লড়াই করলাম কারন আমরা বিশ্বাস করতাম যে আমরাই সঠিক।

 

এবং আমাদের পতন হলো কারন আমরা ভুল ছিলাম।

 

আমরা ভেবেছিলাম আমরা ওখানে ছিলাম উনাকে থামানোর জন্য, কিন্তু সত্যি হলো- -

 

(থর: " বেইমান! একি!"

থরের হাত থেকে হাতুড়ি পড়ে গেল, সথোন মন্ত্র জপ করা শুরু করলো, "০০১০১০০০১০১০১১০১০১০০১০১১০১০১১১০১০১০০০১"

স্কারলেট উইচের উপর যেন আত্মা ভর করেছে। শূন্যে ওয়ান্ডার শরীর দুমরে মুচড়ে যেতে লাগলো। কূইকসিল্ভার তার বোনের অতিমানবিক শক্তির শিকার হলো। এ যেন এক সেমসাইড আক্রমণ। ক্যাপ ধীরে ধীরে লম্বা, প্রত্যয়ী পদক্ষেপে মলীনীয়র (থরের হাতুড়ি) এরদিকে এগোতে থাকলেন। সব অ্যাভেঞ্জার্সদের একের পর এক পতন হতে লাগলো।)

 

আমরা সেখানেই ছিলাম যেখানে ওরা আমাদের চেয়েছিল। তারা আমাদের ব্যাপারে ভালই পরিকল্পনা করেছিল।

 

তারা আমাদের সবচেয়ে ক্ষমতাধর দের আমাদের বিরুদ্ধে বারংবার ব্যাবহার করার পর করে রেখেছিল।

 

পরে, যখন গল্পগুলো বলা হয়েছিল,সবাই একটি ব্যাপারে গুরুত্ব দিয়েছিল--

 

কত তাড়াতাড়ি এটা ঘটে গেল।

 

আমরা ভেবেছিলাম আমরা কত শক্তিশালী, কত অজেয়।

 

কিন্তু আমরা এরচেয়ে তাড়াতাড়ি, এরচেয়ে পুরোপুরি আর কখনো পতিত হতে পারতাম না।

 

তাই আমরা যখন পতন দেখলাম- -

 

আমরা পারলাম শুধু চেয়ে চেয়ে অসহায় ভাবে দেখতে, ঠিক আমাদের জন্মের দিনটার মতো।

 

এবং পৃথিবী আমাদের পাশ দিয়ে সরে পড়ার সময়, আমরা আমাদের শত্রুর দিকে তাকিয়ে ছিলাম, অবশেষে দেখলাম তাদের প্রকৃত রূপ।

 

তারা ছিল আরো শক্তিশালী।

 

তারা ছিল আরো ক্ষমতাধর।

 

ঐ মুহুর্তে---

 

তারা ছিল সুযোগ্য।

 

 

 

মূল: নিক স্পেন্সার

আংশিক রূপান্তর: ওয়াসিম হাসান মাহমুদ 

দৈনিক জামালপুর
দৈনিক জামালপুর