• সোমবার ১৫ জুলাই ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ৩০ ১৪৩১

  • || ০৭ মুহররম ১৪৪৬

মেয়ের চিকিৎসায় জমি বিক্রি, ছেলে ও নাতিরা মিলে শাশুড়িকে হত্যা

দৈনিক জামালপুর

প্রকাশিত: ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩  

সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলার দহকুলা গ্রামের বৃদ্ধা মোমেনা বেওয়া (৮০) হত্যার রহস্য উদঘাটন করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। বৃদ্ধার অসুস্থ মেয়ে সালমা খাতুনের চিকিৎসার জন্য জমি বিক্রি করায় পুত্রবধূ নাজমা খাতুন ও তার ছেলে পরিকল্পনা করে শ্বাসরোধে তাকে হত্যা করা হয়।
হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত পুত্রবধূ নাজমা খাতুন (৫৫) আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। 

এর আগে, গত ১৫ সেপ্টেম্বর ঢাকার শাহজাহানপুর রেলওয়ে কলোনি থেকে তাকে গ্রেফতার করে পিবিআই।

সোমবার দুপুরে সিরাজগঞ্জ পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) এর কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান পুলিশ সুপার রেজাউল করিম।

সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার বলেন, মোমেনা বেওয়ার স্বামীর মৃত্যুর পর পুত্রবধূ নাজমা খাতুন ও নাতিদের সঙ্গে বসবাস করতেন। বৃদ্ধা মোমেনা বেওয়ার নামে কিছু জমি ছিলো। ঐ জমি বিক্রি করে তার অসুস্থ মেয়ে সালমা খাতুনের চিকিৎসায় ব্যয় করেন। এছাড়া পুত্রবধূ নাজমা খাতুনের অন্য এক ছেলের সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এই দুই ঘটনা নিয়ে পুত্রবধূ ও নাতিদের সঙ্গে বৃদ্ধা মোমেনা বেওয়ার মনোমানিল্য হয়। এরই জেরে বৃদ্ধা মোমেনা বেওয়ার হত্যার পরিকল্পনা করে পুত্রবধূ ও নাতিরা। পরিকল্পনা অনুযায়ী ২০১৬ সালের ২৭ মে রাতে বৃদ্ধা মোমেনা বেওয়াকে শ্বাসরোধে হত্যা করে পড়নের শাড়ি দিয়ে ঘরের মধ্যে মরদেহ ঝুলিয়ে রাখে। পরে আত্মহত্যা করেছে মর্মে প্রচার চালায় তারা। 

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে মৃতের মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়। 

এ ঘটনায় বৃদ্ধার মেয়ের জামাই মাহবুবুল আলম বুলু বাদী হয়ে উল্লাপাড়া থানায় একটি অস্বাভাবিক মৃত্যু মামলা দায়ের করেন। 

পরবর্তীতে ময়নাতদন্ত রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়, বৃদ্ধা মোমেনা বেওয়াকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট প্রাপ্তির পর মৃতের আরেক নাতী আমিরুল ইসলাম বাবু বাদী হয়ে তিন জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরো ২/৩ জনকে আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেন। 

মামলাটি পিবিআইকে তদন্তের নির্দেশ দেয় আদালত। দীর্ঘ ২ বছর ৯ মাস তদন্ত চলাকালে ঘটনার সঙ্গে জড়িত মৃতের পুত্রবধূ নাজমা খাতুনকে ঢাকার শাহজাহানপুর রেলওয়ে কলোনি থেকে গ্রেফতার করে পিবিআই। 

গত ১৬ সেপ্টেম্বর তিনি আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন।

দৈনিক জামালপুর
দৈনিক জামালপুর