• বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ ||

  • শ্রাবণ ২ ১৪৩১

  • || ০৯ মুহররম ১৪৪৬

বকশীগঞ্জে রাতের আধাঁরে স্কুল মাঠে ডেকে নিয়ে চাচা-ভাতিজাকে মারপিট!

দৈনিক জামালপুর

প্রকাশিত: ২৯ জুন ২০২৪  

জামালপুরের বকশীগঞ্জে ভাতিজার পারিবারিক কলহের জের ধরে স্কুল মাঠে ডেকে নিয়ে তার চাচাকে পিটিয়ে আহত করার অভিযোগ উঠেছে। 

২৪ জুন (সোমবার) দিবাগত রাত সাড়ে ১১ টার দিকে ঘটনাটি ঘটেছে বগারচর ইউনিয়নের নয়পাড়া ফইটকার মোড় এলাকায়। 

স্থানীয় সূত্র ও ভুক্তভোগীরা জানান, ২০২৩ সালে বগারচর ইউনিয়নের মধ্য ঘাসির পাড়া গ্রামের মিষ্টার আলীর ছেলে জুবাইল হাসানের সঙ্গে একই ইউনিয়নের নয়াপাড়া ফইটকার মোড় এলাকার নজরুল ইসলামের মেয়ে নুপুর আক্তারের (২০) বিয়ে হয়।
বিয়ের কিছুদিন পর থেকেই জুবাইল হাসানের সঙ্গে পারিবারিক কলহে জড়িয়ে পড়ে নুপুর আক্তার। 
ভুক্তভোগী জুবাইল হাসানের অভিযোগ , তার সংসার ভাঙার জন্য নুপুরের দুলা ভাই বাচ্চু মিয়া ষড়যন্ত্র শুরু করে। বাচ্চু মিয়া গোপনে জুবাইল হাসানের স্ত্রী নুপুরের সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করেন। বিষয়টি জানাজানি হলে জুবাইল হাসান ও নুপুরের মধ্যে পারিবারিক কলহ আরও প্রকট হয়। এক পর্যায়ে গত রোজার ঈদে জুবাইল হাসানের বাড়ি থেকে নুপুরকে নিয়ে যায় তার শ^াশুরী। এরপর জুবাইল হাসান একাধিকবার তার স্ত্রীকে আনতে গেলেও আর ছেড়ে দেননি।  এনিয়ে দুই পরিবারের মধ্যে পারিবারিক দ্ব›দ্ব আরো বেড়ে যায়। 
এরই জের ধরে গত ২৪ জুন সোমবার জুবাইল হাসানের চাচা সেলিম মিয়াকে ফোন দেন নুপুরের বড় ভাই আল আমিন । আল আমিন ওই রাতে ফোন দিয়ে সেলিম মিয়াকে তার ভাতিজার স্ত্রীকে নিয়ে যেতে বলেন এবং বিষয়টি সমাধানের জন্য ফইটকার মোড়ে অবস্থিত সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে আসতে বলেন। 
আল আমিনের কথায় সেলিম মিয়া তার ভাতিজা জুবাইল হাসানকে সঙ্গে নিয়ে ফইটকার মোড়ে যান। তারা সেখানে পৌঁছানোর সঙ্গে সঙ্গে আল আমিন, তার ভাই আ: সালাম ও তার বড় বোন জামাই বাচ্চু মিয়া সহ কয়েকজন লাঠি সোঠা, লোহার রড দিয়ে সেলিম মিয়াকে গালিগালাজ ও বেধড়ক পেটানো শুরু করেন এবং বাচ্চু মিয়া বুকের ওপর চড়ে সেলিম মিয়াকে গলা টিপে হত্যার চেষ্টা করেন।
এসময় চাচা সেলিম মিয়াকে মারধর করতে বাঁধা প্রদান করায় হামলাকারীরা ভাতিজা জুবাইল হাসানের হাতের আঙ্গুল কামড় দিয়ে থেতলে দেন এবং হামলাকারীরা জুবাইল হাসানের দুটি মোবাইল সেট ও সেলিম মিয়ার কাছ পকেটে থাকা নগদ ৫০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যায়। 
পরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় জুবাইল হাসান ও সেলিম মিয়াকে বকশীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। 
জুবাইল হাসান জানান, আমার চাচা ও আমাকে পরিকল্পিতভাবে ডেকে নিয়ে আমার শ^শুর বাড়ির লোকজন শারীরিক নির্যাতন করেছে। আমার চাচাকে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে। আমি এর বিচার চাই। 
আহত সেলিম মিয়া জানান, আমার ভাতিজা জুবাইল হাসানের পারিবারিক দ্ব›দ্ব মেটাতে এবং তার স্ত্রীকে আমাদের দিয়ে দিবে এমন আশ^াসে আমরা সেখানে গেলে পূর্ব পরিকল্পনা মোতাবেক আমাদের ওপর হামলা চালায় বাচ্চু মিয়া, আল আমিন, আ: সালাম সহ আরো কয়েকজন।  আমাদের অন্যায়ভাবে পিটিয়ে আহত করার ঘটনায় সংশ্লিষ্টদের নিকট বিচার চাই। 
এঘটনায় আইগত ব্যবস্থা নিতে আমরা আইনের আশ্রয় চাইব বলে জানান ভুক্তভোগী জুবাইল হাসান ও সেলিম মিয়া। স্থানীয় এলাকাবাসী এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানিয়েছেন। 
 

দৈনিক জামালপুর
দৈনিক জামালপুর